খাবার

পুরান ঢাকার অখ্যাত জায়গায় বিখ্যাত খাবার

ধোলাইখালের ফিরোজ ভাইয়ের কাবাবধোলাইখালের ফিরোজ ভাইয়ের কাবাব

পুরান ঢাকার খাবারঃ অখ্যাত জায়গায় বিখ্যাত খাবার 

 

পুরান ঢাকার খাবার এর নাম শুনলেই চোখের সামনে প্রথমেই ভেসে উঠে বিরিয়ানী। বেশিরভাগ মানুষের মুখে ঘুরে ফিরে স্বল্প সংখ্যক নাম যেমন হাজীর  বিরিয়ানী, নান্নার শাহী বিরিয়ানী, বিসমিল্লাহর কাবাব, হানিফের বিরিয়ানি স্থান পায়। কিন্তু পুরান ঢাকাতো আর একটুখানি জায়গাও নয় আবার সেখানকার মানুষ সারাক্ষণ বিরিয়ানী খায় তেমনটাও নয়। বিখ্যাত দোকানের আড়ালে তুলনামূলক অপরিচিত কিন্তু স্বাদে গন্ধে অতুলনীয় বেশকিছু দোকানের দরকার হয়না কোন  প্রচারণার।  স্থানীয় মানুষের ভীড় লেগে সসময়ই লেগে থাকে এসব দোকানে। সেগুলো নিয়েই এই প্রয়াস।

 কিছুক্ষণ রেস্টুরেন্ট

নামের সাথে কাজের যথেষ্ট মিল রয়েছে গেন্ডারিয়ার কাঠের পুল পেড়িয়ে ডিস্টিলারী রোডের কিছুক্ষণের।খাওয়ার আগে আপনাকে সিটের জন্য আধাঘন্টা দাঁড়িয়েও থাকতে হতে পারে! এখানে ডিম চপ, কাটলেট, স্যুপ, মোগলাই অনেক কিছু পাওয়া গেলেও কিছুক্ষণ মূলত এর স্পেশাল স্যুপ আর কাটলেটের জন্য বিখ্যাত।

কিছুক্ষণ রেস্টুরেন্ট এর ডিমচপ ও কাটলেট
কিছুক্ষণ রেস্টুরেন্ট এর ডিমচপ ও কাটলেট

 

 

 

চৌরঙ্গী রেস্টুরেন্ট

পুরান ঢাকার বাংলাবাজারের নর্থব্রুক রোডের একদম শেষ মাথায় অবস্থিত চৌরঙ্গী রেস্টুরেন্ট মূলত এর লুচি ডাল এবং হাফফ্রাই ডিম অমলেটের জন্য জনপ্রিয়। যারা এখনো খাননি তারা জন্য এর স্বাদ পরখ করে দেখতে পারেন।

চৌরঙ্গী হোটেলের লুচি ডাল পরটা
চৌরঙ্গীর লুচি ডাল পরটা

 

 ক্যাফে কর্নার

পুয়ান ঢাকার খাবার হিসেবে দীর্ঘ ৬০ বছর ধরে পুরান ঢাকার মানুষদের মন জয় করে আসছে ক্যাফে কর্নারের লোভনীয়সব আইটেম।এটিও নরথব্রুকে চৌরঙ্গীর একদম উল্টা পাশেই অবস্থিত। ক্যাফে কর্নার খাবারের আইটেমগুলোর মধ্যে আছে  সকালের নাশতা: ডাল, ভাজি, হালুয়া, পরটা, ডিম, চা। দুপুরে: মোরগ পোলাও এবং অন্যান্য খাবার। বিকেলে: ক্রাম্ব চপ, কাকলেট, চিংড়ি ফ্রাই, চিকেন ফ্রাই, ফিস ফ্রাই, ফিস চপ, মোগলাই। এরা মূলত ক্রাম্ব চপের জন্য বেশ প্রসিদ্ধ।

ক্যাফে কর্নার এর ক্রাম্ব চপ
ক্যাফে কর্নার এর ক্রাম্ব চপ

 

বুদ্ধুর পুরিঃ

পুরান ঢাকার সবচেয়ে নামকরা এবং পুরনো পুরির দোকানের নাম বুদ্ধুর পুরি। ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত এ দোকানে প্রতিদিন প্রায় আড়াই হাজারের উপরে পুরি বানানো হয়। দূরদূরান্ত থেকে প্রতিদিন অনেক মানুষ এখানে পুরি খেতে আসেন। এদের স্পেশাল আইটেম ডিম পুরি।

বুদ্ধুর পুড়ি
বুদ্ধুর পুড়ি

 

 

 ধোলাইখালের ফিরোজ ভাইয়ের কাবাবঃ

ধোলাইখাল টং মার্কেটের একদম সামনেই রাস্তায় দেখতে পাবেন ফিরোজ ভাইয়ের কাবাবের পসরা।কাবাব প্রেমীদের জন্য বেশ আকর্ষণীয় আইটেম। একদম গরম গরম চোখের সামনেই কাবাব বানিয়ে পরোটা ভেজে দেবে।

ধোলাইখালের ফিরোজ ভাইয়ের কাবাব
ধোলাইখালের                                                                                                                 ফিরোজ ভাইয়ের কাবাব

 

 

গ্রীন সুইটমিট

পুরো নাম মোহাম্মদ আলী গ্রীন সুইটমিট কিন্তু সবাই চেনে গ্রীন সুইট্মিট নামে পুরান ঢাকার ঠাঁটারীবাজারের বিবিসি রোডে হোটেল স্টার যেখানে ছিলো তার উল্টো পাশেই অবস্থিত। বসার কোন জায়গা নেই রাস্তায় দাঁড়িয়ে খেতে হবে সন্দেশ লাড্ডু অনেক কিছু পাওয়া গেলেও এদের সচেয়ে জনপ্রিয় আইটেম সকালের নাস্তায় লুচি গাজরের হালুয়া আর টক দিয়ে ভাজি ।

মোহাম্মদ আলী গ্রীন সুইটমিট
গ্রীন সুইটমিট

 

শাহী দিল্লী সুইটমিটঃ

পুরান ঢাকার পাটুয়াটূলী রোডে অবস্থিত শাহী দিল্লী সুইটমিট। বিভিন্ন ধরনের মিস্টান্ন আইটেম ছাড়াও দোকানটি এদের নাস্তা আইটেম লুচি ভাজির জন্য বিখ্যাত।এদের এখানে বিভিন্ন ধরনের হালুয়া পাওয়া যায় এবং চায়ের জন্যও শাহী দিল্লী সুইটমিট বেশ জনপ্রিয়।

শাহী দিল্লীর সুইটমিট
শাহী দিল্লীর সুইটমিট

 

 

দেশবন্ধু রেস্টুরেন্ট এন্ড সুইটমিটঃ

টিকাটুলীতে অবস্থিত দেশবন্ধু রেস্টুরেন্ট এন্ড সুইট্মিট মূলত সকালের নাস্তার জন্য বিখ্যাত। মতিঝিল টিকাটুলীতে কখনো যাওয়া হলে দেশবন্ধুর পরোটা ভাজি হালুয়া পরখ করে দেখতে পারেন স্বাদে নিরাশ হবেন না আশা করি।

 

 

দেশবন্ধু সুইটমিট
দেশবন্ধু সুইটমিট

 

তথ্যসুত্রঃ বিভিন্ন ফুডব্লগ ও https://bengalbeats.com/

 

1

Leave a Reply

%d bloggers like this: